এই যুদ্ধ বরাবরই মানব প্রজাতি কে করতে হয়েছে, কখনো অন‍্য প্রানীদের বিরুদ্ধে কখনো প্রাকৃতিক প্রলয়ের বিরুদ্ধে কখনো ইনসেক্টের বিরুদ্ধে কখনো ভাইরাসের বিরুদ্ধে এবং দুঃখজনক হলেও নিজেদের বিরুদ্ধে

0
এই যুদ্ধ বরাবরই মানব প্রজাতি কে করতে হয়েছে, কখনো অন্য প্রানীদের বিরুদ্ধে কখনো প্রাকৃতিক প্রলয়ের বিরুদ্ধে কখনো ইনসেক্টের বিরুদ্ধে কখনো ভাইরাসের বিরুদ্ধে এবং দুঃখজনক হলেও নিজেদের বিরুদ্ধে। সাময়িকভাবে থেমে গেছে আবার ঘুরে দাঁড়িয়ে দিগুন বেগে যাত্রা শুরুকরেছে। এবার যুদ্ধের বিস্তৃতিটা একটু বেশি। সকল সম্প্রদায়কে মোকাবেলা করতে হচ্ছে। শত্রুটা এবার অনেক কৌশুলী এবং এ কে ধ্বংশ করার মতো যুদ্ধাস্র মানুষ এখনও তৈরী বা আবিস্কার করতে পারে নাই। চেষ্ঠা চলছে। সঠিক ও অব্যর্থ অস্ত্র আবিস্কার বা তৈরী না হওয়া পর্যন্ত সম্প্রদায় ভিত্তিক বিশ্বাস কেন্দ্রিক বিভিন্ন অস্ত্রের ব্যবহার চলছে । চলতে থাকুক ।

 

প্রকৃত প্রতিষেধক আবিস্কারের আগ পর্যন্ত এ সকল অস্ত্রের ব্যবহার চলবেই – এবং শত্রু বিনাশ হলে সকলের অস্ত্রই কার্যকরী বা ফলপ্রসূ ছিলো বলে একটা সন্তোষ পেতেও কোন অসুবিধা নেই। তবে এটা নিশ্চিত যে এই যুদ্ধে মানব প্রজাতি খেসারত দিচ্ছে এবং দিবে। এর ব্যপ্তি যেহেতু বিশ্বব্যপী তাই তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বলা যেতে পারে। প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে যে শারিরিক,ও আর্থিক ক্ষতি হয়েছিলো তা ছাড়িয়ে যাওয়া অস্বাভাবিক নয় বরং প্রাকৃতিক বিবেচনায় এটাই স্বাভাবিক। তবে মানব প্রজাতি ঘুরে দাঁড়াবে। বিজয়ী হবে। যুদ্ধউত্তর মানুষিক ও সামাজিক অবস্থান কেমন হবে এটা এখনই বলা যাচ্ছে না। এ যুদ্ধ কতটা ভয়ংকর হবে তার উপর নির্ভর করবে। আশা করা যায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধউত্তর সময় যে মানবিক বিশ্বব্যবস্থা গড়ে তোলার অংগীকার ছিলো তেমন কিছুই করবে মানব প্রজাতি। হয়তো প্রকৃতির সাথে সমঝে চলার নীতি গ্রহন করবে। মানুষের বিরুদ্ধে অস্ত্র তৈরীর প্রতিযোগিতার পরিবর্তে মানুষ রক্ষার অস্ত্র তৈরীতে বেশি ব্যয় বাড়াবে।

 

হয়তো ভোগ বিলাস থেকে ফিরে প্রয়োজনীয় পন্য, খাদ্য উৎপাদনে মনোযোগ দিবে। অবশ্য সবই অনুমান। মানব প্রজাতি তার বিপদ কেঁটে গেলে আবার তার চরিত্র অনুযায়ী জীবন চালাতে চায়। যাই হোক। যদি টিকে থাকি তবে দেখে যেতে পারবো বদলে যাওয়া নতুন বিশ্বব্যবস্থা। আমি আশা করি শিঘ্রই প্রকৃত অস্ত্র আবিস্কৃত হোক আর মানব প্রজাতি আবার বিজয়ী হোক এবং গড়ে তুলুক নতুন বিশ্ব ব্যবস্থা!

 

Credit: Kazal Faruqui 

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.