বাড়ি ভেঙে বৃদ্ধসহ ডোবায় ফেলে দিলেন ইউপি সদস্য

0

জমি দখল করতে শাহাদত হোসেন নামে এক কৃষকের বাড়িঘর ভেঙে কৃষকের বাবাকেসহ ডোবায় ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে নাটোরের গুরুদাসপুরের স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুর রউফের বিরুদ্ধে।

বুধবার ভোরে উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের দরিহাসমারি গ্রামে ইউপি সদস্য আব্দুর রউফের নেতৃত্বে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী কৃষক শাহাদত হোসেন ইউপি সদস্য আব্দুর রউফ, তার ভাতিজা লিটন ও ভাই কুদ্দুসসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে বাদী হয়ে গুরুদাসপুর থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন। শাহাদতের আহত পিতা আফসার আলীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দড়িহাসমারি গ্রামের আফসার আলীর ছেলে শাহাদত হোসেনের দলিলকৃত জায়গা দীর্ঘদিন যাবৎ জোরপূর্বক দখল করে আসছিল ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুর রউফের বড়ভাই আব্দুল কুদ্দুস ও তার স্বজনরা।

এক বছর পূর্বে সালিশি বৈঠকে শাহাদত হোসেন তার বাড়ির বিক্রিকৃত জায়গা ছেড়ে দেবেন আর পার্শ্ববর্তী ১১ শতাংশ জমি শাহাদত হোসেনকে দেওয়া বলে কথা হয়। সেখানে তিনি বাড়ি করবেন।

এর একপর্যায়ে বুধবার ভোরে শাহাদত হোসেনের বাড়ি জোরপূর্বক ভেঙে দেয় আব্দুর রউফ মেম্বারের ভাই আব্দুল কুদ্দুস। এ ঘটনায় মেম্বার ও তার ভাই আব্দুল কুদ্দুস, হামিদ, রেজা, কপি, লিটন, হাসিনুরসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী শাহাদত হোসেন।

কৃষক শাহাদত হোসেন জানান, তিনি অসহায় হতদরিদ্র মানুষ। দিনমজুরি করে সংসার পরিচালনা করেন। তার পিতাকে হত্যাচেষ্টা ও বাড়িঘর ভাংচুরের সঙ্গে জড়িত সবার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য আব্দুর রউফ জানান, তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানেন না। তার সুনাম ক্ষুন্ন করতেই এমন মিথ্যা নাটক সাজানো হয়েছে। তিনি নাটোরে ছিলেন।

ইউপি সদস্যের ভাই আব্দুল কুদ্দুস বলেন, তাদের জায়গায় অবৈধভাবে ঘর তোলা ছিল, তা তারা সরিয়ে দিয়েছেন। ভাংচুর বা মারপিটের মতো কোনো ঘটনা সেখানে ঘটেনি।

গুরুদাসপুর থানার ওসি মো.আব্দুল মতিন জানান, মামলা রুজু করা হয়েছে। আসামি গ্রেফতারের জন্য এলাকায় পুলিশ মোতায়েন আছে। গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

%d bloggers like this: