কেনো স্বেচ্ছায় কারাবাসে যেতে চাইছে সুইজার‌ল্যান্ডের মানুষ?

0

শখ করে মানুষ অনেক জায়গায় ঘুরতে যেতে চান। থাকতে চান পছন্দের কোনো রিসোর্ট কিংবা হোটেলে। যদি কাউকে প্রশ্ন করা হয়, এই মুহূর্তে শখ করে আপনি কোথায় যেতে চান? উত্তরে বাংলাদেশের অনেকেই হয়তো সুইজারল্যান্ডের কথাই বলবেন। চাইবেন প্রকৃতির নান্দনিকতায় ঠাসা দেশটার চারপাশ ঘুরে দেখতে। তবে আপনি জানেন তো, সুইজারল্যান্ডের মানুষরা শখ করে কোথায় যেতে চাইছেন? কোথায় আবার, কারাগারে! শুনে অবাক হলেও তেমন ঘটনাই ঘটতে যাচ্ছে দেশটিতে।

সুইজারল্যান্ডের জুরিখ শহরে কারাবাসের সুযোগ নিতে স্বেচ্ছায় ‘কয়েদি’র খাতায় নাম লিখিয়েছেন শত শত মানুষ। নতুন কারাগারে বন্দিদের পোরার আগে এসব মানুষ শখ করে কারাগারে থাকবেন। কী ধরনের সুযোগ-সুবিধার পাওয়া যায় তা পরখ করে দেখবেন।

চলতি বছরের ২৪ থেকে ২৭ মার্চ শুরু হবে এই পরীক্ষামূলক কার্যক্রম, তবে পরীক্ষাটির ব্যাপারে বিস্তারিত এখনও জানানো হয়নি। প্রাথমিকভাবে জুরিখ কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত ৮৩২ শখের কারাবাস-ইচ্ছু মানুষের আবেদন তারা পেয়েছেন। কিন্তু ঠিক কতো জনকে সুযোগ দেওয়া হবে তা চূড়ান্ত হয়নি।

তবে শর্ত আছে, নির্বাচিত স্বেচ্ছাসেবকদের অবশ্যই স্থানীয় বাসিন্দা হতে হবে। ১৮ বছরের নীচের কাউকে এই সুযোগ দেয়া হবে না। আর এই বন্দিশালায় ঢুকলেই স্বেচ্ছা বন্দিরা এক টিভি রিয়েলিটি শো’র অংশ হয়ে যাবেন। তারা কারাগারের খাবার পরীক্ষা করতে পারবেন, বন্দিদের জন্য নির্ধারিত আঙ্গিনায় হাঁটতে বা বেড়াতেও পারবেন। তবে মোবাইল ফোন বা অন্য ডিভাইস নিয়ে যেতে পারবেন না।

কারাগার আর কারারক্ষীদের সম্পর্কে মানুষের মধ্যে যে ভুল ধারনা রয়েছে, তা নিরসন করতেই জুরিখ কর্তৃপক্ষ এই উদ্যোগ নিয়েছে।

সুত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

%d bloggers like this: