কানাডায় মুসলিম পরিবারের চারজনকে গাড়িচাপায় হত্যা, আতঙ্কিত ট্রুডো

0

কানাডার ওন্টারিও প্রদেশের টরন্টোয় এক মুসলিম পরিবারের চার সদস্যকে গাড়িচাপা দিয়ে হত্যা করেছে এক যুবক। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে ৯ বছর বয়সী এক শিশুও। গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় টরন্টোর প্রায় ২০০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে লন্ডন শহরে একটি রাস্তা পার হওয়ার জন্য অপেক্ষায় থাকা ওই পরিবারের সদস্যদের চাপা দেন ওই যুবক। নাথানিয়াল ভেল্টম্যান নামের ওই হামলাকারীর বয়স ২০ বছর। হামলার পর ঘটনাস্থল থেকেই নাথানিয়ালকে আটক করেছে কানাডিয়ান পুলিশ।

নিহতদের মধ্যে ৭৪ ও ৪৪ ব’ছর বয়সী দুইজন নারী ছিলেন। এছাড়া নিহত হন ১৫ বছরের এক কিশোরী এবং ৪৬ বছরের এক ব্যক্তি। খবর আল জাজিরা ও বিসিসির।

পূর্বপরিকল্পিতভাবে তিনি এ হামলাটি চালিয়েছেন, যাকে বিদ্বেষমূলক অপরাধ হিসেবে দেখছেন অনেকে। তবে হামলাকারী কোন ঘৃণ্য গোষ্ঠীর সদস্য কিনা তা এখনো পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

লন্ডন পুলিশ বিভাগের প্রধান কর্মকর্তা স্টেফেন উইলিয়ামস বলেন, খবর পেয়েই স্থানীয় পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। তারা তড়িৎ ব্যবস্থা নিয়েছে। ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে। নিহতদের সবাই মুসলিম ও তাদের হত্যা করা হয়েছে, ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে।

এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন স্থানীয় মেয়রের পাশাপাশি কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। ঘটনার পর জাস্টিন ট্রুডো একটি টুইট বার্তায় লিখেছেন, এই সংবাদ দ্বারা তিনি ‘আতঙ্কিত’।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী আরও লিখেছেন, ‘আমাদের কোনও সম্প্র’দায়ের মধ্যে ইসলাম ফোবিয়ার কোনও স্থান নেই। এই ঘৃণা কুখ্যাত এবং নিন্দনীয়- এবং এটি বন্ধ করা উচিত।’

দ্যা গার্ডিয়ানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ কানাডিয়ান মুসলিমসের সিইও মোস্তফা ফারুক জানান, খবরটি শোনার পর তিনি স্তম্ভিত হয়ে পড়েছিলেন।

তিনি আরও জানান, এই পরিবারটি সেখানে দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করে আসছিল এবং সেখানকার মুসলিম কমিউনিটিতে এই পরিবার সকলের প্রিয় ছিল।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.